দাখিল পরীক্ষার রুটিন ২০২৪ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড [Dakhil Exam routine 2024 pdf download]

দাখিল পরীক্ষার রুটিন ২০২৪

মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে দাখিল রুটিন ২০২৪ প্রকাশিত হয়েছে। দাখিল পরীক্ষা মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড দ্বারা পরিচালিত হয়। বাংলাদেশে একটি মাত্র মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড। দাখিল পরীক্ষা মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেটের সমতুল্য। দাখিল পরীক্ষা শেষ হলে, শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশে আলিম পরীক্ষার জন্য ভর্তি হতে পারে।

দাখিল পরীক্ষার রুটিন ২০২৪ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড [Dakhil Exam routine 2024 pdf download]

দাখিল পরীক্ষা 2024 কবে শুরু হবে?

প্রতিবছর দাখিল পরীক্ষা হয় ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে। এবারও তারিখ পরিবর্তন হবে না। পরীক্ষা অল্প সময়ের মধ্যে নেওয়া হবে। মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে দাখিল লিখিত পরীক্ষা শুরু হবে ১৫-০২-২০২৪ ইং তারিখে এবং ২৫ মার্চ ২০২৪ এ শেষ হবে। ২৭ মার্চ ২০২৪ থেকে ০৩ এপ্রিল ২০২৪ পর্যন্ত দাখিলের সকল ব্যবহারিক পরীক্ষা শেষ হবে। সকালের শিফটে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত এবং বিকেলের শিফটে দুপুর ২টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষা শুরু হবে।

দাখিল পরীক্ষার রুটিন ২০২৪ মাদ্রাসা বোর্ড

বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থা ও প্রতিষ্ঠানের তিনটি প্রধান পর্যায় রয়েছে: প্রাথমিক শিক্ষা, মাধ্যমিক শিক্ষা এবং উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা। এসএসসি পরীক্ষার যাবতীয় তথ্য educationboard.gov.bd-এ পাওয়া যাবে।

দাখিল পরীক্ষার রুটিন ২০২৪ বাংলাদেশ শিক্ষা মন্ত্রণালয় ঘোষণা করেছে। দাখিল পরীক্ষা ফেব্রুয়ারি ২০২৪ থেকে শুরু হবে, সেইসাথে একই সময়ে এসএসসি পরীক্ষাও সারা দেশে শুরু হবে। দাখিল এবং দাখিল ভোকেশনাল পরীক্ষা মার্চ ২০২৪ শেষ হবে।

দাখিল পরীক্ষার রুটিন 2024 বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড www.bmeb.gov.bd তে, আপনি দাখিল পরীক্ষার রুটিন PDF এবং JPGE ফরম্যাট পেয়ে যাবেন। মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড বা “আলিয়া মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড দাখিল রুটিন 2024 প্রকাশ করবে। তারা তাদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের ঠিকানার মাধ্যমে তাদের নোটিশ বোর্ডে সমস্ত বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করবে।

গত বছর মোট ২৮৬৯১৭ (১৪২৬২২ জন পুরুষ এবং ১৪৪২৯৫ জন মহিলা) শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল। তাদের মধ্যে ২০৩৩৮২ জন (১০১৪৩৬ জন পুরুষ এবং ১০১৯৪৬  জন মহিলা) শিক্ষার্থী পাস করেছে, অর্থাৎ প্রতিটি বাধ্যতামূলক এবং নির্বাচনী বিষয়ে ন্যূনতম জিপি 1.0 পেয়েছে। পাসের শতাংশ হল ৭০.৮৯। মোট ৩৩৭১ জন (১৯৮৮ জন পুরুষ এবং ১৩৮৩ জন মহিলা) শিক্ষার্থী জিপিএ 5.00 পেয়েছে। এই সংখ্যা অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে।

পরিচালনার জন্য বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড গঠন করা হয়েছে। ১৯৭৮ সালে মাদ্রাসা শিক্ষার এ সিদ্ধান্ত হয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। বাংলাদেশ সরকার দেশের মাদ্রাসা পরিচালনা করে। এই পরীক্ষায় বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করছে। বেশিরভাগ লোক একে সাধারণভাবে এসএসসি পরীক্ষা এবং মাদ্রাসায় দাখিল পরীক্ষা বলে। প্রতি বছর বহু সংখ্যক ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে থাকে। প্রতিবছর এই সংখ্যা বাড়ছে। তারা সরকারি নিয়ম-কানুন মেনে চলে।

দাখিল পরীক্ষার রুটিন ২০২৪ pdf download

দাখিল পরীক্ষার রুটিন ২০২৪ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড [Dakhil Exam routine 2024 pdf download]
দাখিল পরীক্ষার রুটিন ২০২৪ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড [Dakhil Exam routine 2024 pdf download]
Dwnload PDF

দাখিল পরীক্ষা ২০২৪ নির্দেশাবলী

মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড দাখিল রুটিন ২০২৪-এ সংক্রান্ত বিশদ নির্দেশাবলীও প্রকাশ করেছে।

বিশেষ নির্দেশাবলি:

  • পরীক্ষা শুরুর ৩০ (ত্রিশ) মিনিট পূর্বে অবশ্যই পরীক্ষার্থীদেরকে পরীক্ষা কক্ষে আসন গ্রহণ করতে হবে।
  • প্রশ্নপত্রে উল্লিখিত সময় অনুযায়ী পরীক্ষা গ্রহণ করতে হবে।
  • প্রথমে বহুনির্বাচনী ও পরে সৃজনশীল/রচনামূলক (তত্ত্বীয়) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে এবং উভয় পরীক্ষার মধ্যে কোন বিরতি থাকবে না।
  • পরীক্ষার্থীদেরকে তাদের প্রবেশপত্র নিজ নিজ প্রতিষ্ঠান প্রধানের নিকট হতে পরীক্ষা আরম্ভের কমপক্ষে তিনদিন পূর্বে সংগ্রহ করতে হবে।
  • শারীরিক শিক্ষা, স্বাস্থ্যবিজ্ঞান ও খেলাধুলা (১৪২) এবং ক্যারিয়ার শিক্ষা (১৪৫) বিষয় দুটি এনসিটিবি এর নির্দেশনা অনুসারে ধারাবাহিক মূল্যায়নের মাধ্যমে প্রাপ্তনম্বর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ পরীক্ষা চলাকালীন সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রকে সরবরাহ করবে। সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রসচিব ব্যবহারিক পরীক্ষার নম্বরের সাথে ধারাবাহিক মূল্যায়নে প্রাপ্তনম্বর বোর্ডের ওয়েবসাইটে অনলাইনে প্রেরণ করবেন।
  • পরীক্ষার্থীগণ তাদের নিজ নিজ উত্তরপত্রের OMR ফরমে রোলনম্বর, রেজিস্ট্রেশন নম্বর, বিষয় কোড ইত্যাদি যথাযথভাবে লিখে বৃত্ত ভরাট করবে। কোন অবস্থাতেই উত্তরপত্র ভাঁজ করা যাবে না।
  • পরীক্ষার্থীকে সৃজনশীল/রচনামূলক (তত্ত্বীয়), বহুনির্বাচনী ও ব্যবহারিক অংশে পৃথকভাবে পাস করতে হবে।
  • প্রত্যেক পরীক্ষার্থী কেবলমাত্র রেজিস্ট্রেশন কার্ডে বর্ণিত বিষয়/বিষয়সমূহের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। কোন অবস্থাতেই ভিন্ন বিষয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না।
  • পরীক্ষার্থীগণ পরীক্ষায় সাধারণ সায়েন্টিফিক ক্যালকুলেটর ব্যবহার করতে পারবে।
  • কেন্দ্রসচিব ব্যতীত অন্য কোন ব্যক্তি/পরীক্ষার্থী পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল ফোন আনতে ও ব্যবহার করতে পারবেন না। কেন্দ্রসচিব যোগাযোগের স্বার্থে সাধারণ (নন-এনড্রয়েড) মোবাইল ফোন ব্যবহার করবেন।
  • সৃজনশীল/রচনামূলক (তত্ত্বীয়), বহুনির্বাচনী, ব্যবহারিক ও মৌখিক (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীর উপস্থিতির জন্য একই স্বাক্ষরলিপি ব্যবহার করতে হবে।
  • ব্যবহারিক ও মৌখিক পরীক্ষা স্ব-স্ব কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে। তবে কেন্দ্রস্থিত মাদ্রাসায় বিজ্ঞান বিভাগ না থাকলে কেন্দ্রের আওতাধীন বিজ্ঞান বিভাগ আছে এমন মাদ্রাসায় ব্যবহারিক পরীক্ষা গ্রহণ করতে হবে।
  • মুজাব্বিদ বিভাগের কিরআতে তারতিল ও হাদর (বিষয় কোড-১২০) এবং হিফজুল কুরআন বিভাগের হিফজুল কুরআন দাওর (বিষয় কোড- ১২২) এর মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
  • পরীক্ষার ফল প্রকাশের পরবর্তী ০৭ (সাত) দিনের মধ্যে উত্তরপত্র পুন:নিরীক্ষণের জন্য অনলাইনে SMS এর মাধ্যমে আবেদন করা যাবে।
পরবর্তী পোস্ট পূর্ববর্তী পোস্ট
No Comment
আপনার মন্তব্য জানান
comment url