একুশের বইমেলা সম্পর্কে প্রতিবেদন রচনা করো

একুশের বইমেলা সম্পর্কে প্রতিবেদন

আলোচ্য ‌‌বিষয়:
👉🏻একুশের বইমেলা সম্পর্কে পত্রিকায় প্রকাশের জন্য একটি প্রতিবেদন রচনা করো ।
👉🏻তোমার দেখা একটি বইমেলা সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন তৈরি করো ।
একুশের বইমেলা সম্পর্কে প্রতিবেদন রচনা করো

শিরোনাম : একুশের বইমেলা জমে উঠছে।

নিজস্ব প্রতিবেদক : মহান ভাষা শহিদদের স্মরণে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে আয়োজিত একুশের বইমেলা বেশ জমে উঠেছে । বাংলা একাডেমি ও সংলগ্ন এলাকা আবাল - বৃদ্ধ - বনিতার পদভারে মুখরিত । কয়েকদিন মন্দা চলার পর মেলায় বইয়ের ক্রয়-বিক্রয় বৃৃদ্ধি পেয়েছে । এজন্য প্রকাশক ও পুস্তক ব্যবসায়ীদের মুখেও এখন পরিতৃপ্তির ছোয়া ফুটে উঠেছে । এই মেলা পুরো একমাস স্থায়ী থাকবে ।

দশদিন আগে মেলা শুরু হলেও গতকালই প্রথম মেলা জমজমাট হয়ে ওঠে । ছুটির দিন থাকায় অসংখ্য মানুষ মেলায় এসে তাদের পছন্দের বইটি সংগ্রহ করেছে । প্রথম দিকে মেলায় লোক সমাগম কম হওয়ার কারণ সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান , মাসের শেষ থাকায় অনেকেই বই কেনার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ যোগাড় করতে সক্ষম হয় নি । তাছাড়া অনেকে নতুন নতুন বই মেলায় আসার জন্য অপেক্ষা করছিল ।

মেলায় বিভিন্ন প্রকাশনা সংস্থার স্টলে গতকাল উপচেপড়া ভিড় ছিল । বেচা - বিক্রি গতকাল ছিল অন্য কয়েকদিনের তুলনায় অনেক বেশি । তবে ভিড়ের ফাঁকে সংঘবদ্ধ বইচোরদের দৌরাত্ম্য ছিল উল্লেখ করার মতো । প্রতিদিন যে পরিমাণ বই চুরি যাচ্ছে তাতে প্রকাশকদের লাভের সিংহভাগই খোয়া যাবার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে । আইন প্রয়োগকারী সংস্থা মেলার শৃঙ্খলা রক্ষা করতে পারলেও বইচোরদের দৌরাত্ম্য কমাতে পারছে না । এদিকে মেলায় কিছু উচ্ছৃঙ্খল ও বখাটে যুবক পরিবেশ নোংরা করছে । তারা হৈ চৈ করে , শিষ বাজিয়ে মেয়েদের উত্ত্যক্ত করছে । সন্ধ্যায় মেলায় ভিড় জমে উঠলে অনেক তরুণী এসব বখাটে তরুণদের দ্বারা বিব্রতকর অবস্থার মুখোমুখি হচ্ছে । এসব বখাটে তরুণদের তৎপরতা বন্ধ করা না গেলে মেলার পবিত্রতা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশ রক্ষা অসম্ভব হবে ।

গতকাল আল মাহমুদ , মুহাম্মদ জাফর ইকবাল , ইমদাদুল হক মিলন , মঈনুল আহসান সাবের , আব্দুল মান্নান সৈয়দ , আল মুজাহিদী , সৈয়দ শামসুল হক , সেলিনা হোসেন , মোহিত কামাল , আতা সরকার , সুমন্ত আসলাম , প্রণব ভট্ট , হানিফ সংকেত প্রমুখ জনপ্রিয় কবি - সাহিত্যিক মেলায় এসেছিলেন । তাঁরা বিভিন্ন স্টলে বসে পাঠক - ক্রেতার সাথে সরাসরি কথাবার্তা বলেছেন । লেখকের অটোগ্রাফ সংবলিত প্রিয় বইটি সংগ্রহের জন্যে বিভিন্ন স্টলে ক্রেতারা ভিড় জমায় । বিভিন্ন লেখক , কবি - সাহিত্যিকদের অটোগ্রাফ দিতে দিতে ঘর্মাক্ত হতে দেখা যায় ।

গতকালও বিভিন্ন লেখকের নতুন নতুন বই বাজারে এসেছে । প্রকাশকদের সাথে আলাপ করে জানা গেছে , এখন পর্যন্ত সুপরিচিত ও গণ্যমান্য বিভিন্ন লেখক , কবি - সাহিত্যিকদের বই - ই বিক্রি তালিকার শীর্ষে রয়েছে । তাঁদের যেকোনো নতুন বই প্রথম দিনেই ২/৩ হাজার বিক্রি হয়ে যাচ্ছে । গতবারের চেয়ে এবার বইয়ের দাম শতকরা ২৫/৩০ ভাগ বেড়েছে । বইয়ের উচ্চ মূল্যের কারণে অনেক পাঠক পছন্দের সবগুলো বই ক্রয় করতে সক্ষম হচ্ছে না । ফলে বই উল্টে - পাল্টে দেখে চলে যাচ্ছে অনেকে ।

আজ বইমেলা আরও জমবে বলে প্রকাশক - বিক্রেতারা আশা করছেন । তবে তারা বইচোরদের অপতৎপরতার জন্যও আতঙ্কগ্রস্ত । মেলার পরিবেশ রক্ষা ও বইচোরদের দমন করার জন্য তারা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের প্রত্যাশা করছেন ।


আরো পড়ুন:
পরবর্তী পোস্ট পূর্ববর্তী পোস্ট
No Comment
আপনার মন্তব্য জানান
comment url