ভাব-সম্প্রসারণ : মিথ্যা শুনিনি ভাই এই হৃদয়ের চেয়ে মন্দির কাবা নাই

মিথ্যা শুনিনি ভাই এই হৃদয়ের চেয়ে মন্দির কাবা নাই।

ভাব-সম্প্রসারণ : মিথ্যা শুনিনি ভাই এই হৃদয়ের চেয়ে মন্দির কাবা নাই

মূলভাব : মানুষ কেবল শরীরী সত্তা নয় , তার আছে হৃদয় বা আত্মা । মানবহৃদয়ের মূল্য অন্য কিছুতে হয় না । মানবহৃদয়ের পরিপুষ্টি ও মূল্যায়নেই মনুষ্যত্বের মূল্যায়ন ।

সম্প্রসারিত ভাব : মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব । স্বয়ং সৃষ্টিকর্তাই শ্রেষ্ঠত্বের এই তকমা মানুষকে পরিয়ে দিয়েছেন । আর মানুষের এ শ্রেষ্ঠত্ব অর্জিত হয়েছে এ কারণে যে , প্রাণিজগতে কেবল তারই রয়েছে হৃদয়বৃত্তি , অনুভূতি ও আবেগের প্রকাশ । মানুষের শ্রেষ্ঠ সম্পদ বিবেকও হৃদয়েরই অনুষঙ্গ । মানবহৃদয় বিচিত্র ও রহস্যঘন এক জগৎ । এর দৃশ্যমান কোনো স্বরূপ নেই কিন্তু মানুষকে নিয়ন্ত্রণ করার রয়েছে সর্বাত্মক ক্ষমতা । দৈহিকভাবে মানুষের যে বিচরণ তা নিতান্তই জৈবিক বিষয় কিন্তু তার অন্তর জীবসত্যের এক অলৌকিক দিককে নির্দেশ করে । যাতে মানুষ সীমা থেকে অসীমের সাথে যোগসূত্র স্থাপন করতে সক্ষম হয় । সেজন্যই বলা হয় , মানুষের হৃদয়ে বাস করেন স্বয়ং স্রষ্টা । তাই স্রষ্টাসন্ধানী সুফী - দরবেশ ও মরমিয়া সাধকগণ হৃদয়ের আরাধনাতেই মশগুল থাকেন । সাধকগণ বলেছেন- “ Know yourself ” - অর্থাৎ নিজেকে জানো । নিজের অন্তরের খবর রাখা সম্ভব হলে ঈশ্বর আর আড়ালে থাকেন না। সেজন্য জ্ঞানী ও কল্যাণকামী ব্যক্তিবর্গ মানুষের হৃদয়কে সর্বোচ্চ স্থানে রেখেছেন । মানবহৃদয়ে যাতে কোনোপ্রকার যাতনার সৃষ্টি না হয় সেজন্য তারা সতর্কতা অবলম্বন করেছেন । মানুষকে শারীরিকভাবে কষ্ট দিলে তা নির্দিষ্ট সময় পর আর থাকে না কিন্তু মনের কষ্ট মানুষ আমৃত্যু বয়ে বেড়ায় । মানুষের মনে কষ্ট দিলে মহান স্রষ্টা পর্যন্ত ব্যথিত হন । সেজন্য মহামানবগণ মানুষের মনে সুখ - শান্তি এনে দেবার জন্য সচেষ্ট থেকেছেন । বস্তুত মন্দির বা কাবা ঈশ্বর সাধনার স্থান , তার চেয়েও বড় পবিত্র হলো মানবহৃদয় । কেননা এ হৃদয়েই ঈশ্বর আছেন , থাকবেন ।

মন্তব্য : এ হৃদয় সমস্ত উপাসনালয়ের সর্বশ্রেষ্ঠ স্থান । হৃদয় কলুষিত হলে দিনরাত আরধনা করলেও কোনো ফল হবে না ।

ভিডিও দেখুন



আরো পড়ুন:

পরবর্তী পোস্ট পূর্ববর্তী পোস্ট
No Comment
আপনার মন্তব্য জানান
comment url