স্বদেশের উপকারে নাই যার মন , কে বলে মানুষ তারে পশু সেই জন | ভাব-সম্প্রসারণ

স্বদেশের উপকারে নাই যার মন ,
কে বলে মানুষ তারে পশু সেই জন ।

স্বদেশের উপকারে নাই যার মন , কে বলে মানুষ তারে পশু সেই জন | ভাব-সম্প্রসারণ

মূলভাব : স্বদেশপ্রেম সর্বোত্তম মানবিক গুণ । একজন মানুষ কতখানি ভালো বা মন্দ তা নির্ণীত হয় দেশপ্রেমের মানদণ্ডে । দেশপ্রেমহীন মানুষ পশুর সমতুল্য ।

সম্প্রসারিত ভাব : সামাজিক জীব হিসেবে মানুষকে কয়েকটি সামাজিক দায়িত্ব পালন করতে হয় । দেশের প্রতি দায়িত্ব পালন করা তথা সমাজের উপকার সাধন করা প্রতিটি মানুষের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কর্তব্য । দেশের প্রতি ভালোবাসা সুনাগরিকত্বের পরিচয় । দেশকে ভালোবেসে দেশ ও জাতির কল্যাণে নিজেকে উৎসর্গ করা প্রত্যেকটি দেশপ্রেমিক নাগরিকের উদ্দেশ্য ও লক্ষ হওয়া উচিত । এ প্রসঙ্গে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানব হযরত মুহম্মদ ( স ) বলেছেন , “ দেশপ্রেম ঈমানের অঙ্গ । ” এটি অর্থ - সম্পদ , বংশগত আভিজাত্য ও পদমর্যাদার মাপকাঠিতে নির্ণীত হয় না । মানুষ ধনবান হতে পারে , রূপবান হতে পারে , বিশাল ক্ষমতার অধিকারী হতে পারে , কিন্তু তার মধ্যে যদি দেশপ্রেম না থাকে , তবে সে মানুষ নামেরই কলঙ্ক । স্বদেশ ও স্বজাতির উপকারে যার কোনো ভ্রক্ষেপ নেই , দেশের কল্যাণে যে নিবেদিতপ্রাণ নয় , দেশ ও জাতির মহা - বিপর্যয়ে যার প্রাণ কাঁদে না , সে বিবেকবর্জিত অমানুষ ছাড়া কিছুই নয় । এ ধরনের স্বার্থপর ও আত্মকেন্দ্রিক মানুষ আর পশুর মধ্যে মূলত কোনো পার্থক্য নেই । পশুর মধ্যে নীতিজ্ঞান নেই , দেশ বা জাতির প্রতি কোনো মমত্ববোধ নেই , ন্যায় - অন্যায় বিচারবোধ নেই । তেমনি অনেক মানুষ আছে যাদের মধ্যে স্বদেশ বা স্বজাতির প্রতি কোন ভালোবাসা নেই । এরা মানুষ নামের অযোগ্য— অমানুষ । পশুর সাথে এদের তেমন পার্থক্য খুঁজে পাওয়া যায় না ।

মন্তব্য : দেশপ্রেম মানব জীবনের একটি শ্রেষ্ঠ গুণ ও অমূল্য সম্পদ । দেশসেবায় নিজের জীবন উৎসর্গ করার মধ্যেই নিহিত মানবজীবনের সার্থকতা ।

ভিডিও দেখুন



আরো পড়ুন:
পরবর্তী পোস্ট পূর্ববর্তী পোস্ট
No Comment
আপনার মন্তব্য জানান
comment url